সাইটে গুগল এডসেন্স না পাওয়া 5টি কারণ

ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য নতুন ব্লগাররা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে, কিন্তু সহজে গুগল এডসেন্স পাই না। এর কারণ অ্যাডসেন্সে জন্য আবেদন করার আগে নতুন ব্লগাররা কিছু ভুল করে, ভুল গুলোর জন্য তারা সহজে গুগল অ্যাডসেন্সে পাইনা।

সাইটে গুগল এডসেন্স না পাওয়া ৫টি কারণ

আজ আমি আলোচনা করব পাঁচটি ভুল সম্পর্কে। যে ভুলগুলোর কারণে নতুন ব্লগাররা সহজেই তাদের ওয়েব সাইটে গুগল এডসেন্স পাইনা। আজকের পোস্ট পড়লে আপনি সহজে আপনার ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

ওয়েবসাইটে গুরুত্বপূর্ণ পেজ :

গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করার পূর্বে ওয়েবসাইটে আপনাকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ পেজ তৈরি করতে হবে। যদি এই পেইজগুলো তৈরি না করে গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করেন, তাহলে গুগল আপনাকে সাইটে গুগল এডসেন্স দেবে না।

ওয়েবসাইটের গুরুত্বপূর্ণ পদগুলো হচ্ছে About Us, Contact Us, Privacy Policy, ইত্যাদি। 

আপনি যদি গুগোল অ্যাডসেন্সে আপনার ওয়েবসাইটে আবেদন করে থাকে, তাহলে অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইটে এই তিনটা পেজ থাকতেই হবে। যদি তিনটা পেজ তৈরী না করে আপনি গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করেন, তাহলে আপনার আবেদন গুগল এডসেন্স রিজেক্ট করে দেবে। 

আপনি যদি এই এই পেজগুলোতে কি ইনফরমেশন দেবেন এ সম্পর্কে না জানেন। তাহলে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের ক্যাটাগরি রিলেটেড অন্যান্য ব্লগ সাইটের এই পেইজগুলো কপি করে আপনার ইনফরমেশন বসিয়ে আপনার ওয়েবসাইটে পেজ বানাতে পারেন। 

এছাড়াও আপনারা সবসময় তাই করবে একটা কুকিজ পপ-আপ দেখাতে। আপনি যদি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে আপনার ব্লগ সাইট তৈরি করে থাকেন তাহলে আপনি এক ক্লিকেই একটি কুকিজ তৈরি করতে পারেন। এর জন্য আপনি যেকোন একটি ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ব্যবহার করতে পারেন।

ওয়েবসাইটে পর্যাপ্ত আর্টিকেল:

সাইটে গুগল এডসেন্স অ্যাপ্রুভ না পাওয়ার আর একটি প্রধান কারন হচ্ছে সাইটে পর্যাপ্ত আর্টিকেল না থাকা। গুগল অ্যাডসেন্স পাওয়ার উপায় এর মূলে কপিরাইট ফ্রি ইমেজ, কোয়ালিটি কন্টেন্ট ও পর্যাপ্ত আর্টিকেল। 

গুগল এডসেন্স আবেদন করার পূর্বে আপনার ব্লগে অবশ্যই ওয়েবসাইট এর প্রত্যেকটি ক্যাটাগরিতে কমপক্ষে ৫ টি করে পোস্ট করবেন। কমপক্ষে ২০/২৫ টি ভালমানের ইউনিক পোষ্ট যেন আপনার ওয়েবসাইট থাকে।  প্রত্যেকটি আর্টিকেলে1,000 শব্দের বেশি বড় লেখবেন। 

আর্টিকেল লিখতে বেশি সময় লাগলেও, আপনার ওয়েবসাইটে লিখা প্রত্যেকটি আর্টিকেল যাতে 1000 থেকে 2000 শব্দের মধ্যে হয়। অবশ্যই অন্য ওয়েবসাইট থেকে লেখা কপি করে নয়, আপনি নিজে আর্টিকেল লিখে আপনার ওয়েবসাইটে পাবলিশ করবেন। আপনার লেখা আর্টিকেল1000 শব্দের বেশি থাকলে, গুগল এডসেন্স আপনার ব্লগকে high quality ব্লগ ভাববে।

ফাঁকা পেজ বা ক্যাটাগরি না রাখা:

গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করার পূর্বে, আপনাকে অবশ্যই নিশ্চিত হতে হবে, আপনার সাইটে কোনো ফাঁকা পেইজ বা ক্যাটাগরি নাই। 

আপনার সাইটে যদি ফাঁকা ক্যাটাগরি বা পেইজ থাকে এবং আপনি যদি গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করেন। তাহলে গুগল এডসেন্স আপনার সাইট রিভিউ করে আপনাকে বলবে “Your website is not ready yet” এবং আপনার ওয়েবসাইট গুগল এডসেন্স রিজেক্ট করে দিবে।

এবং অবশ্যই আপনি আপনার সাইটটি তে  হেডার মেনুবারে ৪ বা তার অধিক ক্যাটাগরি বা পেইজ যুক্ত করবেন। অবশ্যই থাকা কোন পেইজ বা ক্যাটাগরি মেনুবারে দিবেন না।

অনেকেই ওয়েবসাইটে অনেকগুলা ক্যাটাগরি তৈরি করে রাখে কারণ সে পরবর্তীতে পোস্ট পাবলিশ করবে। আপনিও যদি বেশি ক্যাটাগরি তৈরি করে থাকেন, তাহলে সেগুলো পোস্ট লেখার পর তারপরে ওয়েবসাইটে সেটআপ করেন। 

অন্য বিজ্ঞাপন দেওয়া:

আপনি যদি আপনার ওয়েবসাইটের অন্য কোন বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকেন, তাহলে গুগোল অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভে হওয়ার আগেই এগুলো সরিয়ে ফেলুন। অন্যথায় গুগল আপনার ব্লগে এডসেন্স এপ্রুভ করবে না। 

অনেকেই আছে সাইটের বিজ্ঞাপনে রিয়া হেডারে বা সাইডবারে নিজের ফেসবুকের বা ইউটিউব এর লিংক বসায়। কিন্তু গুগোল এগুলোকে বিজ্ঞাপন হিসেবে কাউন্ট করে। গুগল অ্যাডসেন্স এপ্রুভ হওয়ার আগে ইমেজ আকারে ইউটিউব বা ফেসবুকের লিংক ব্যবহার করবেন না

যদি আপনার ওয়েবসাইটে এফিলিয়েট লিংক ও ব্যবহার করেন, তবুও সেইলিং গুলো সরিয়ে ফেলুন। এফিলিয়েট লিংক, ইউটিউব ভিডিও লিংক ইত্যাদি সবকিছু সরিয়ে ফেলুন।

গুগোল অ্যাডসেন্স অ্যাপ্রভে হওয়ার পরে এফিলিয়েট লিংক এবং অন্যান্য বিজ্ঞাপন ব্যবহার করতে পারবেন।

সাইট গুগল ইনডেক্স

আপনার ওয়েবসাইটে পর্যাপ্ত আর্টিকেল দেওয়ার পর অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইটটি গুগল সার্চ কনসোলেসাবমিট করবেন। যাতে আপনার সবগুলো আর্টিকেল গুগল সার্চ কনসোল ইন্ডেক্স করে।

আপনার ওয়েবসাইটটি গুগলে ইনডেক্স না হয়, তাহলে অবশ্যই আপনি সাইটে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করবেন না। আপনার ওয়েবসাইট যদি গুগলে ইনডেক্স হয় তাহলেই আপনি এর জন্য আবেদন করবেন।

এখন অনেকেই বলবেন আমি কিভাবে আমার ওয়েবসাইটে গুগল সার্চ ইঞ্জিনে ইন্ডেক্স হয়েছে কি না! কিভাবে চেক করব?

এটা চেক করা খুবই সহজ প্রথমে আপনার ওয়েবসাইটে ডোমেইন নেমের আগে সাইট লেখে গুগোল এ সার্চ দেন। অবশ্যই https ব্যবহার করবেন না।

উদাহরণ: site:yourwebsite

না বুঝে থাকলে অবশ্যই নিচের চিত্রটি লক্ষ্য করুন।

সাইটে গুগল এডসেন্স

উপরে দেখানো অনুযায়ী যদি আপনি আপনার ডোমেইন নাম লিখে গুগলে সার্চ করেন, তাহলে আপনার কতগুলো পোস্ট এবং পেজ গুগলে ইনডেক্স হয়েছে সবগুলো দেখা যাবে আশা করি বুঝতে পেরেছেন। না বুঝে থাকলে কমেন্ট করে জানাবেন।

সাইটে গুগল এডসেন্স না পাওয়া 5টি কারণ আর্টিকেলটা যদি বুঝতে না পারেন, তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানান। অবশ্যই আমি কমেন্টের প্রত্যেকটা রিপ্লাই দেওয়ার চেষ্টা করব।

আমি নিজেও দীর্ঘদিন ধরে গুগল এডসেন্স ব্যবহারকারী। আর্টিকেলটি আমার দীর্ঘ দিনের অভিজ্ঞতার আলোকে লেখা। ভুল-ত্রটি মার্জনীয়। 

আপনার যদি কোন প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানান। ভাল লাগলেও অবশ্যই কমেন্ট করতে ভুলবেন না।

আর্টিকেলটি সম্পন্ন করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। এরকম রেগুলার অনলাইনে ইনকাম টিপস পেতে আমাদের সাথেই থাকুন। আবারো ধন্যবাদ

Leave a Comment